কোচিং না করেও কীভাবে বিসিএস ক্যাডার হলেন রুহুল আমিন ?

মেঘনা তীরবর্তী গ্রাম দয়াকান্দার মেধাবি ছাত্র এস এম রুহুল আমিন শরীফ ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষায় প্রশাসন ক্যাডারে প্রথম স্থান অধিকার করে দেশবাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার বিশনন্দী ইউনিয়নের দয়াকান্দা গ্রামের তাঁত শিল্প ব্যবসায়ী ও কৃষি উদ্যোক্তা ছিদ্দিকুর রহমান ও রেহেনা আক্তারের বড় ছেলে। বিসিএসে প্রথম হওয়া রহুল আমিন কোনো কোচিং করেনি। সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টাতেই তার এই সাফল্যের পেছনে মা বাবাসহ পরিবারের অবদান বেশি। বিসিএস ক্যাডার পরীক্ষায় তার পছন্দক্রম ছিল যথাক্রমেÑ প্রশাসন, পুলিশ ও পররাষ্ট্র। প্রবল আত্মবিশ্বাসই ছিল তার সাফল্যের মূল মন্ত্র। তার কৃতিত্বের শুরু হয়েছিল প্রাথমিক স্তর থেকেই। মাধ্যমিক থেকে আর পেছনে তাকাননি। এখন তার ক্যারিয়ার গগণ স্পর্শ করেছে।আরিফা, আফরোজা ও আফসানা তার তিন বোন এবং মো: নুরুল আমিন শাহেদ একমাত্র ছোট ভাই। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৮তম ব্যাচে বিএসসি অ্যাগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্সে অধ্যয়নরত ছাত্রী মারিয়া ইসরাত তার স্ত্রী।শরীফ ছোটবেলা থেকেই অসামান্য মেধার পরিচয় দিয়ে আসছিল। শৈশব থেকেই জনসংযোগে তিনি অত্যন্ত সুনিপুণ। ২০০২ সালে শরিফ দয়াকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে টেলেন্টপুল বৃত্তি, ২০০৫ সালে শম্ভুপুরা উচ্চবিদ্যালয় থেকে টেলেন্টপুলে জুনিয়র বৃত্তি এবং গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে ২০০৮ সালে এসএসি পাস করেন। ঢাকা কলেজ থেকে ২০১০ সালে এইচএসসি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে স্নাতকত্তোর ডিগ্রি অর্জন করেন। সে এএমআইই-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র।বর্তমানে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে দ্বিতীয় কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত পালনরত শরিফ শম্ভুপুরা উচ্চবিদ্যালয়ে বিজ্ঞান, গণিত ও ইংরেজির বিশেষায়িত শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

আরও পড়ুনঃ  বাটন ফোনে নগদ ব্যাবহার করার নিয়ম l How to Use Nagad on Button Phone

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

দয়া করে আপনার Ad Blocker টি বন্ধ করুন

অ্যাডের টাকা দিয়েই আমাদের সাইট পরিচালনা করা হয় ‌‌। আপনি দয়া করে আপনার Ad Blocker টি বন্ধ করে আমাদেরকে সাহায্য করুন ‌।